Dhaka, Bangladesh
    বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯
    ২৩ Rabi' I, ১৪৪১
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৪:৫৭ পূর্বাহ্ণ
    সূর্যোদয়ভোর ৬:১৬ পূর্বাহ্ণ
    যোহরদুপুর ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ
    আছরবিকাল ২:৫০ অপরাহ্ণ
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:১২ অপরাহ্ণ
    এশা রাত ৬:৩০ অপরাহ্ণ
Facebook By Weblizar Powered By Weblizar

সারা দেশ


মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ
ফ্রান্সে ১৫ বছরের কম বয়স্ক কোনো শিক্ষার্থী স্কুলে মোবাইল, ট্যাবলেট, স্মার্টওয়াচ ব্যবহার করতে পারবে না। এমনকি দুপুরের আহার বেলায়ও এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর।
চলতি বছরের জুলাই মাসে মোবাইল নিষিদ্ধ করে আইনটি পাশ হয়। পরবর্তীতে তালিকায় যুক্ত হয় ট্যাবলেট ও স্মার্টওয়াচ।
ক্লাস চলাকালীন ফ্রান্সে মোবাইল নিষেধ করা হয় ২০১০ সালে। তবে এবার অন্যান্য সময়ও আইনে যুক্ত হয়েছে। তবে শারীরিকভাবে অক্ষম শিক্ষার্থীদের জন্য আইনে শিথিলতা রয়েছে।
ছেলেমেয়েরা মোবাইলের ওপর বেশি নির্ভরশীল ও সামাজিকতা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে এমন আশঙ্কাকে কেন্দ্র করে এই আইন জারি করা হয়েছে। এটিকে অভিহিত করা হচ্ছে ‘একুশ’ শতকের আইন হিসেবে।
নতুন আইন অনুসারে শিক্ষার্থীদের তাদের ফোন স্কুলে বন্ধ করে রাখতে হবে নতুবা লকারে জমা করতে হবে।


মেহেনাস তাব্বাসুম শেলির রিপোর্টঃ
বহুল প্রতীক্ষিত বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি পদে বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান এবং সাধারণ সম্পাদক পদে দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল নির্বাচিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) রাত ৭টার দিকে ভোট গণনা শেষে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান বিজয়ী ও বিজিতি প্রার্থীদের ফলাফল ঘোষণা করেন।
উপজেলার ১০ ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও জেলা আওয়ামী লীগের নির্ধারীত কাউন্সিলরগণ ভোট দেন।
সভাপতি আতাউর রহমান খান ২১২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আব্দুল হাসিব মনিয়া পেয়েছেন ১৬৭ ভোট এবং অপর প্রার্থী নজমুল হোসেন পেয়েছেন ১২ ভোট। দুইটি ভোট বাতিল হয়েছে। ভোট মোট দিয়েছেন ৩৯৩জন ভোটার।
সাধারণ সম্পাদক পদে দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল বিজয়ী হয়েছেন। তিনি ভোট পেয়ে পেয়েছেন ১৫১। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি হারুনুর রশিদ দিপু ১০৩ ভোট পেয়েছেন । অপর তিন প্রার্থী জাকির হোসেন ৭৮, আবুল কাশেম পল্লব ৬০ ও জামাল হোসেন ৫ ভোট পান।
সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৮জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাঁরা হচ্ছেন- সভাপতি পদে আব্দুল হাসিব মনিয়া, আতাউর রহমান খান ও নজমুল হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে জাকির হোসেন, হারুনুর রশিদ দিপু, দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, আবুল কাশেম পল্লব এবং জামাল হোসেন। ভোটের আগে নির্বাচন থেকে নাম প্রত্যাহার করে সভাপতি পদে মাহমুদ আলী ও সাধারণ সম্পাদক পদে সেলিম উদ্দিন আহমদ।
বিকাল ৪টা থেকে শহরতলীর ইউসুফ কমিউনিটি সেন্টারে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ১০ ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের ৪০৬জন কাউন্সিলর ভোট দেন আগামী নেতা নির্বাচন করতে। ভোট দিয়েছেন ৩৯৩জন কাউন্সিলর।

আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি॥

কেক কাটা,বিশেষ মোনাজাত,পতাকা উত্তোলন,প্রীতিভোজ সহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে সেনাবাহিনীর লক্ষীছড়ি জোনের দায়িত্বে নিয়োজিত ২৬ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারি’র ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে।

রবিবার দুপুরে লক্ষীছড়ি জোন সদরে অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে জোন অধিনায়ক লে:কর্ণেল জাহাঙ্গির আলম সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন,গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহরিয়ার জামান।

এ সময় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে,ডিজি এফ আই ডেট কমান্ডার কর্ণেল.নাজিম উদ্দিন,সিন্দুকছড়ি জোন অধিনায়ক লে:কর্ণেল রুবায়েত মাহমুদ হাসিব,মাটিরাংগা জোন অধিনায়ক লে:কর্ণেল নওরোজ নিকোশিয়ার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ সদস্য রেম্রাচাই চৌধুরী, লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান বাবুল চৌধুরী, মানিকছিড় উপজেলা চেয়ারম্যান মো: জয়নাল আবেদিন, লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রাজু চাকমা দিপান্তর, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুমনা চাকমা, থানার অফিসার্স ইনচার্জ হুমায়ুন কবীরসহ সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

পার্বত্য এলাকায় সেনাবাহিনী সম্প্রীতির মেল বন্ধন তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে মন্তব্য করে প্রধান অতিথি গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহরিয়ার জামান বলেছেন,পার্বত্য এলাকায় কিছু দুষ্ট মানুষ রয়েছে। তাদের নিধনে নিরাপত্তাবাহিনী সহ সকলে সচেতন আছে। পাহাড়েরে উন্নয়ন ও শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নে সকলে মিলেমিশে কাজ করতে হবে।

এর আগে আমন্ত্রিত অতিথিগণ অনুষ্ঠানস্থলে পৌছলে তাদেরকে স্বাগত জানান,লক্ষীছড়ি জোন অধিনায়ক লে:কর্ণেল জাহাঙ্গির আলম ।পরে আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে নিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহরিয়ার জামান।দিবসটি উপলক্ষে সকালে পতাকা উত্তোলন, বিশেষ মোনাজাত জোনের পক্ষ হতে গরীব, অসহায় দুস্থ্যদের মাঝে অনুদান বিতরণ সহ দুপুরে প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয় ।

ছিন্নমূল বড়ইতলা ২ নং সমাজে তিন বছরের শিশু কন্যা রুমাকে বাড়িতে রেখে অন্যান্য দিনে মত কাঠ ও পানি সংগ্রহ করতে বাইরে যায় তার মা পরভীন আক্তার। পরে সন্ধ্যার দিকে পানি ও কাঠ নিয়ে বাড়িতে ফিরে দেখেন তার মেয়ে খুব কান্নাকাটি করছে। পরে তার মা তাকে জিজ্ঞেস করলে একই এলাকার বাসিন্দা শামীম উল্লাহ শম্ভু তাকে খারাপ কাজ(ধর্ষণ) করেছে বলে জানায়। এর পর তাকে স্থানীয় ফার্মেসী থেকে ঔষধ এনে খাওয়ালেও তার কোনো উন্নতি না দেখে গত ৬ নভেম্বর চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসলে ওসিসি ওয়ার্ডে ভর্তি করানো হয়।

বর্তমানে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষায় মেয়ে ধর্ষণ হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছে।

এঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শিশুটির মা পারুল আক্তার গত ১০নভেম্বর রবিবার রাতে সীতাকুণ্ড থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করলে পুলিশ ধর্ষক শামীম উল্লাহ শম্ভুকে উপজেলার জঙ্গল সলিমপুর এলাকার ছিন্নমুল থেকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করেন।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, এঘটনায় অভিযুক্ত শামীম উল্লাহ শম্ভুকে রোববার রাতে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।


আবুল হোসেন রিপন,
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি//

অসহায়,ক্ষতিগ্রস্থ, অসুস্থ ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ। বুধবার সকালে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ হলরুমে এ চেক রিবতণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী। এতে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টিটন খীসা, সদস্য শতরূপা চাকমা প্রমূখ।

চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি কংজরী চৌধুরী বলেন, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ সব সময় অসহায়,দুস্থ ও ক্ষতিগ্রস্থ ও শিক্ষার্থীদের সাথে ছিল থাকবে। এ অনুদান আপনাদের প্রয়োজনে চাহিদা অনুসারে কিছুই না। তারপরও আপনাদের পাশে থেকে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের সাহায্যে হাত সব সময় প্রসারিত ছিল, আগামীতেও থাকবে।

এ সময় তিনি আরো বলেন, পার্বত্য জেলাবাসীর যে কোন সংঙ্কট,অগ্নিকান্ড,দুর্যোগসহ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করতে এ পরিষদ অজ্ঞিকারাবদ্ধ। বর্তমান সরকার পার্বত্য জেলা পরিষদের মাধ্যমে সাধারন মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নসহ তাদের ভাগ্যন্নোয়নের মাধ্যমে সাবলম্বি করে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে বলে তিনি জানান। তাই জেলাবাসীর পাশে পার্বত্য জেলা পরিষদ সুখে-দু:খে পাশে থেকে কাজ করে যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
এ অনুষ্ঠানে আর্থিক সাহায্যের জন্য আবেদনকারী খাগড়াছড়ি জেলা মোট ৬০ জনের হাতে প্রধান অতিথি অনুদানের চেক তুলে দেন। আর্থিক সহায়তার জন্য জরুরী চিকিৎসা,দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ,অসহায় দুস্থ ও শিক্ষার্থীদের মাঝে মোট ১০ লক্ষ ৫ হাজার টাকা আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়।

২০২০ সালের এস.এস.সি পরীক্ষায় অংশ নিতে ফেনীর রামপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ফরম পূরণে চলছে অতিরিক ফি আদায় ।অভিভাবকদের অভিযোগ, নির্ধারিত বোর্ড ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।কয়েকজন অভিবাবক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, রামপুর বালিকা বিদ্যালয়ে এস.এস.সি ফরম পূরণ বাবদ প্রতি পরীক্ষার্থী থেকে প্রায় ৬ হাজার টাকা করে নিচ্ছে। টাকা আদায়ের কোন রশিদ দেয়া হচ্ছে না। এমনকি অতিরিক্ত টাকা আদায়ের কথা কাউকে বললে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়া হবে না বলে ছাত্রীদের সতর্ক করে দেয়া হয়।বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জহির উদ্দিন ইমতিয়াজ এ বিষয়ে কথা না বলতে শিক্ষার্থীদের ভয় দেখান তাতে শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা ক্ষুব্ধ।২০২০সালের এসএসসি পরীক্ষায় শিক্ষা বোর্ডের নির্ধারিত ফি বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসএসসির ফরমপূরণ বাবদ সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৭০ টাকা, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের থেকে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮৫০ টাকা এবং মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮৫০ টাকা ফি নিতে প্রতিষ্ঠানগুলোকে বলেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড গুলো।এছাড়া অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা অনিয়মিত ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া জিপিএ উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের তালিকাভুক্তি ফি ১০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।কিন্তু বোর্ডের নির্দেশনা রামপুর বালিকা বিদ্যালয়ে মানা হচ্ছে না। তবে স্কুলের শিক্ষকরা বলছেন, কোচিং সেবা দেয়ার জন্য শিক্ষকদের জন্য কিছু টাকা ধরে ফি বাড়ানো হয়েছে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন অভিভাবক জানান, “তার বোন ফরম পূরণে বোর্ডের নির্ধারিত ফি এর চেয়ে ৪১৫০ টাকা অতিরিক্ত ফি জমা দিতে হয়েছে।সব মিলিয়ে প্রায় ৬০০০ টাকা নেয়া হয়েছে।” পরীক্ষায় ক্ষতি হতে পারে এমন আশংকায় কোন অভিভাবক এর প্রতিবাদ করেনি। স্কুল কর্তৃপক্ষ পরিকল্পিত ভাবে এ অর্থ বাণিজ্য করেছেন। এমনকি পরীক্ষার্থীদের নিকট হতে ফরম পূরণের আদায়কৃত অর্থের কোন রসিদও দেওয়া হয়নি। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন,পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে বাড়তি অর্থ নেওয়ার কথা অস্বীকার করলেও পরে বলেন, স্কুলের উন্নয়নের জন্য অর্থ নেয়া হয়েছে।

আবুল হোসেন রিপন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি,

খাগড়াছড়ির গুইমারা থানার এক বছরের সাজা প্রাপ্ত পলাতক আসামী কৃষ্ণ মোহন ত্রিপুরা (৩০) অরুপে ফাটা কৃষ্ণ গুন্ডা কে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত কৃষ্ণমোহন ত্রিপুরা গুইমারা উপজেলার সদর ইউনিয়নের মুসলিম পাড়া গ্রামের ওপেন্দ্র ত্রিপুরার পুত্র।

গত বুধবার দুপুরে ১.৩০টার সময় গুইমারা থানা অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ বড়ুয়ার নির্দেশনায়, এসআই, আব্দুল কাদের এর নেতৃত্বে ফোর্স সহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১ বছরের সাজাপ্রাপ্ত জিআর মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী কৃষ্ণ মোহন ত্রিপুরাকে গ্রেফতার করা হয়।

গুইমারা থানার এসআই আব্দুল কাদের জানান, দীর্ঘদিন যাবত সে পলাতক ছিল। সুকৌশলে তার ফোন নাম্বার সংগ্রহ করে গ্রেপ্তারের উদ্দেশ্য মহিলা পুলিশ সদস্যের মাধ্যমে তাকে প্রেমের ফাঁদে জরানো হয়। পরে সে প্রেমের আকৃষ্ট হয়ে দেখা করতে আসলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গুইমারা থানা অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ বড়ুয়া সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃত আসামী কৃষ্ণ মোহন ত্রিপুরা (গুন্ডা ফাটা কৃষ্ণ) জিআর মামলার এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী। দীর্ঘদিন যাবত সে পলাতক ছিলো।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ির গুইমারাতে পাহাড় কাটা’সহ বিভিন্ন অপরাধে দুই ব্যক্তিকে ১লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। দুপুরে উপজেলার কালাপানি ও পশ্চিম বড়পিলাক এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা আদায় করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তুষার আহমেদ। এসময় অবৈধ ভাবে পাহাড় কেটে কাঠের ঘর নির্মান করায় বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষন আইন-১৯৯৫ সালের ৬এর(খ) ধারায় কালাপানি-আমতলী এলাকার বাসিন্দা মোঃ মজিবর(৩৫), পিতা মোহাম্মদ উল্লাহ’কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এছাড়াও এম.বি.বি.এস ডিগ্রী ব্যতীত ডাক্তার পদবী ব্যবহার করায় বাংলাদেশ মেডিকেল এবং ডেন্টাল কাউন্সিল আইন-২০১৩ এর-১ ধারায় পশ্চিম বড়পিলাক এলাকার বাসিন্দা মোঃ দলীল উদ্দিনের ছেলে মোঃ ছরোয়ার হোসেন’কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এসময় গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ কুমার বড়ুয়া, উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা রাজ কুমার শীল’সহ স্থানীয় গনমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তুষার আহমেদ জানান, পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে অবৈধ ভাবে পাহাড় কাটা ও বালু উত্তোলনে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। আইনগত যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়িতে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ কার্যকর করতে জনসচেতনতামূলক মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করেছে জেলা পুলিশ। দুপুরে পৌর শহরের শাপলা চত্ত্বরসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও সড়কে এ প্রচারণা চালানো হয়।

দুর্ঘটনা এড়াতে চালক, যাত্রী ও মালিকদের করণীয় সম্পর্কে সচেতন করতে খাগড়াছড়ি ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক (টি আই) সুপ্রিয় দেবে’র নেতৃত্বে বিভিন্ন সড়কে এ লিফলেট বিতরণ করা হয়। একইসাথে সড়ক পরিবহন আইন মেনে চলতে ও সাধারণ জনগণকে উদ্ধুদ্ধ করতে করা হয় মাইকিং। এসময় মোটর সাইকেল আরোহীদের হেলমেট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, রেজিস্ট্রেশন, ট্যক্স টোকেনসহ ফিটনেস বিহীন যানবাহন না চালাতে সতর্ক করা হয়।

সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণকালে সার্জেন্ট তরুণ দাশ ও ফারুক হোসাইনসহ দায়িত্ব পালনকারী ট্রাফিকরা উপস্থিত ছিলেন।

খাগড়াছড়ি ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক সুপ্রিয় দেব বলেন, পুলিশ সপুারের নিদের্শমতে জনগণকে সড়ক পরিবহন আইন জানার পাশাপাশি সতর্ক ও উদ্বুদ্ধ করতে সপ্তাহব্যাপী লিফলেট বিতরণ কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। যাতে করে জনগণ আইনের শ্রদ্ধাশীল হোন। জনসচেতনতামূলক এ কার্যক্রমে সাধারণ মানুষের সাড়া পাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন এ ট্রাফিক পুলিশের এ কর্মকর্তা।

কামরুল,মীরসরাইঃ মীরসরাই উপজেলার ১নং করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ অলিনগরে দক্ষিণ অলিনগর স্পোর্টস ক্লাব কর্তৃক আয়োজিত ঘরোয়া মিনিবার ফুটবল টূর্ণামেন্টে লিভারপুল চ্যাম্পিয়ন। ট্রাইবেকারে লিভারপুল ৩-০ গোলে ম্যানসিটিকে পরাজিত করে। গত ১ই নভেম্বর শুক্রবার বিকাল ৩টায় দক্ষিণ অলিনগর আবাসন সংলগ্ন মাঠে অনুষ্টিত হয়। উক্ত ক্লাবের সদস্যদের মধ্যে গত ৩ই অক্টোবর  ঘরোয়া পরিসরে ৫টি দলে বিভক্ত হয়ে গ্রুপ পর্বের মাধ্যমে লিভারপুল ও ম্যানসিটি ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়।
পৃথিবীর অন্যতম জনপ্রিয় খেলা এই ফুটবল। ফুটবলের হারানো ঐতিহ্য ফিরে পেতে গ্রাম পর্যায়ে এরকম আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন শাহাজাহান মাস্টার, জহির উদ্দিন ভূঁইয়া (প্রতিষ্ঠাতা দক্ষিণ অলিনগন স্পোর্টিং ক্লাব), মোঃ সামসুদ্দিন,মাঈন উদ্দিন রিপন,সাংবাদিক কামরুল, বেলায়েত হোসেন, নজরুল ইসলাম, ফখরুল ইসলাম বাবলু, দক্ষিন অলিনগর যুব ও তরুন সংঘের সভাপতি পিন্টু
সহ সভাপতি সোহেল সহ উক্ত ক্লাবের একাধিক সদস্য সহ উপদেষ্টা মোশারফ।
খেলা পরিচালনা করেন রাসেল এবং সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিল দক্ষিণ অলিনগর স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি জাহিদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক- আরিফ হোসেন এবং ক্রীড়া সম্পাদক- করিম।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

দেশের প্রতিটি নাগরিকই কমিউনিটি পুলিশের সদস্য। তাই থানা পুলিশকে তথ্য দিয়ে মাদক, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধ নিয়ন্ত্রনে কমিউনিটি পুলিশের সহযোগিতা কামনা করেন খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা সার্কেলের সিনিয়র সার্কেল মো: খোরশেদুল আলম। শনিবার সকালে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ ও মাটিরাঙ্গা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম কর্তৃক আয়োজিত র‌্যালি উত্তর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

এ সসময় তিনি আরও বলেন, আপনার এলাকার অভ্যন্তরে যে সকল অপরাধ প্রতিনিয়ত হচ্ছে তা নিয়ন্ত্রনে কমিউনিটি পুলিশের ভুমিকা অপরিসীম।
মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শামছুদ্দিন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এবং মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক এম হুমায়ন মোর্শেদ খান, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সুবাস চাকমা, মাটিরাঙ্গা পৌর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এম জাহাঙ্গীর আলম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: মনসুর আলী, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো: আলাউদ্দিন লিটন প্রমুখ অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মাটিরাঙ্গা থানা কমপাউন্ড থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে গিয়ে শেষ হয়।

আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ির নবাগত জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস কর্তৃক সাম্প্রতিক সময়ে বাঙ্গালীদের স্থায়ী বাসিন্দা সনদ না দেওয়া ও ভূমি রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় জটিলতা সৃষ্টির মাধ্যমে বাঙ্গালী ভূমি ক্রেতাদের হয়রানি করা এবং বৈষম্যমূলক আচরনের মাধ্যমে পার্বত্য অঞ্চলে অস্থির পরিবেশ সৃষ্টি করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে তীব্র নিন্দা ও জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাষ দ্রুত সময়ের মধ্যে খাগড়াছড়ি থেকে প্রত্যাহার করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

সংগঠনটির জেলা কমিটির সভাপতি মোঃ আসাদুল্লাহ আসাদের সভাপতিত্বে সকালে খাগড়াছড়ি পৌর শাপলা চত্বরে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অন্যান্যের মধ্যে কেন্দ্রীয় আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ইঞ্জি. আব্দুল মজিদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সভাপতি মোঃ সুমন আহমেদ, মোঃ জালাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহাদাৎ হোসেন কায়েশ, সহ-সম্পাদক শামীম হোসেন, মোঃ ওমর ফারুক, মোঃ সোহেল রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশ্রাফুল আলম রনি, দীঘিনালা আহবায়ক মোঃ আলামিন হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, খাগড়াছড়ির নবাগত জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস খাগড়াছড়িতে দায়িত্ব নেবার পর থেকেই বিভিন্ন ভাবে নানা রকম জটিলতার কথা বলে বাঙ্গালীদের স্থায়ী বাসিন্দা সনদ দিচ্ছেন না। এমনকি ভূমি রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় জটিলতা সৃষ্টির মাধ্যমে বাঙ্গালী ভূমি ক্রেতাদের পাহাড়ে ভূমি ক্রয়ের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন। বক্তারা অবিলম্বে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসকে এই বৈষম্য ও হয়রানীমূলক কার্যক্রম থেকে সরে আসার আহবান জানান।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক পাহাড়ে সন্তু লারমা ও প্রসীত বিকাশ খীসার ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতেই বাঙ্গালীদের সাথে এমন আচরণ করছেন উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, আগামী বুধবারের মধ্যে অনতিবিলম্বে স্থায়ী বাসিন্দা সনদ প্রদানের আবেদনের সময়সীমা বাড়ানোসহ হেডম্যান সনদের নামে হয়রানী করা বন্ধ না হলে আগামী বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসক কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচীর ঘোষনা দেন।

এর আগে সকালে চেঙ্গী স্কয়ার হতে একই দাবিতে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে শাপলা চত্বরে এসে মানববন্ধনে মিলিত হয়।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি॥

খাগড়াছড়ির লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক নেতা-কর্মীরা। রবিবার সকালে ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপকে নিষিদ্ধসহ রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে এ বিক্ষোভ মিছিল ও সামবেশে করে তারা। বিক্ষোভ মিছিলটি লক্ষ্মীছড়ি বাজার থেকে বের হয়ে উপজেলা বিভিন্ন সড়ক ঘুরে থানা সংলগ্ন এলাকায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গতি চাকমা। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রাজু চাকমা দিপান্তর ও দেপাত্তন চাকমা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রসিত গ্রুপের ইউপিডিএফ পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিরোধীতা করে পাহাড়কে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করে রেখেছে। কিছু সংখ্যক সাধারণ মানুষকে মিথ্যা আশাবান দিয়ে ভুল বিুঝিয়ে বিভ্রান্ত করছে। নানাভাবে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করাসহ ভয়-ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এসকল হয়রানী ও রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রম বন্ধ’সহ ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপকে নিষিদ্ধের দাবি জানান বক্তারা।


আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি//

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেছেন, সারাদেশে দুর্নীতি, টেন্ডারবাজি ও সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এ অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দেশের আইন শৃংখলা রক্ষায় ও শান্তি বজায় রাখতে পুরো দেশকেই একই জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রামও এর বাইরে নয়। দেশে স্থিতিশীলতা বজায় ও শান্তি শৃঙ্খলার স্বার্থে যখন যে ধরনের পদক্ষেপ প্রয়োজন সে ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হবে। তিনি আজ দুপুরে খাগড়াছড়ির সীমান্তবর্তী উপজেলা রামগড়ে নবনির্মিত মডেল থানা ভবন উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

এ সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী পার্বত্য এলাকায় স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, এখানকার লোকজন যাতে শান্তিতে বসবাস, ব্যবসা বাণিজ্য ও যাতায়াত স্বাচ্ছন্দ্যে করতে পারে সেজন্যই শান্তি-শৃংখলা বাহিনী অত্র এলাকায় কাজ করছে। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে এলাকার জন প্রতিনিধি, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে গ্রহনযোগ্য সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এর আগে মন্ত্রী রামগড় থানায় পৌঁছে সালাম গ্রহণ শেষে ৭কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪ তলা বিশিষ্ট নবনির্মিত রামগড় মডেল থানা ভবনের ফলক উম্মোচন করে উদ্বোধন করেন। পরে ফিতা কেটে ভবনের বিভিন্ন কক্ষ পরিদর্শন করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী।
এসময় খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, সংরক্ষিত আসনের সাংসদ বাসন্তি চাকমা, বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড এর মহা পরিচালক মেজর জেনারেল মো: সাফিনুল ইসলাম, পুলিশের চট্টগ্রাম অঞ্চলের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুকসহ সরকারি- বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে রামগড় সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী সূধী সমাবেশে যোগদেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। সমাবেশে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শরণার্থী বিষয়ক টাক্সফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি’সহ জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

কামরুল,মীরসরাইঃ মীরসরাইয়ে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে  দুর্বৃত্তের  হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দূর্বৃত্তের হামলায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান পন্ড হয়ে যায়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। রবিবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যার ৬টায় উপজেলা হিঙ্গুলী ইউনিয়নের হিঙ্গুলী বাজারে এই ঘটনা ঘটে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আহবায়ক শাহরিয়া চৌধুরী সোহেল জানান, হিঙ্গুলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৯টি ওয়ার্ডে নব-নির্বাচিত সভাপতি-সম্পাদকদের সংবর্ধনার আয়োজন করে হিঙ্গুলী বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ। উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান ইফতেখার উদ্দিন ভূইয়া পিন্টুর সভাপতিত্ব ও বারইয়ারহাট পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম খোকন অনুষ্ঠান উদ্বোধন করার কথা ছিল। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। প্রথম পর্যায়ে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের বক্তব্য শেষে নামাজের বিরতী দেয়া হয়। এসময় হঠাৎ অটো রিক্সা যোগে মুখোশ পড়া কয়েকজন দুর্বৃত্ত দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অতিথিদের জন্য মঞ্চে রাখা ক্রেস্ট ভেঙ্গে ফেলে। মঞ্চের সামনে থাকা চেয়ারগুলো তছনছ করে ফেলে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। ঘটনার সময় কোন অতিথি অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত ছিলেন না  । বিষয়টি মৌখিক ভাবে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ, স্থানীয় চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দকে জানানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী মো. দিদার জানান, দূর্বৃত্তদের মুখে লাল কাপড় বাধা ছিল। ৩ মিনিট হামলা চালিয়ে চোখের পলকে সিএনজি অটো রিক্সা যোগে পালিয়ে যায়।

এবিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার সিরাজুল ইসলাম জানান, তিনি নির্বাচনী দায়িত্বে সাতকানিয়া রয়েছেন। তবে বিষয়টি মৌখিকভাবে তাকে জানালে তিনি থানায় দায়িত্বরত কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

গুইমারা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার প্রাক্তন ছাত্রী রেবেকা সুলতানা পলি’ র নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ ১০ অক্টোবর, সকাল সাড়ে দশটায় মাদরাসা সংলগ্ন মসজিদে এক শোক সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। উক্ত সভায় সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ নুরুননবী’ র সভাপতিত্বে ও সহসভাপতি আবদুল জলিলের সঞ্চালনায় সভায় মরহুমা রেবেকার শ্রেণী শিক্ষক মোঃ ইউচুফ তার স্মৃতিচারণ বক্তব্য রাখেন।

সভায় মরহুমার মামা মোঃ আবদুল মুনাফ পলির নৃশংস খুনের বর্ণনা দেন। এ সময় সভাজুড়ে উপস্থিত শিক্ষকমণ্ডলী, প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মাঝে নেমে আসে শোকের ছায়া। শোকাহত চোখ যেন নির্বাকচিত্তে শুধু বলছিলো, রেবেকা শুধু রাসেল রানা র বোন নয়, সে আমাদেরও বোন। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার সুপার মাওলানা জায়নুল আবদিন। বক্তারা তাদের বক্তব্যে রেবেকার গুইমারা মাদরাসায় অধ্যয়নকালীন মধুর স্মৃতি তুলে ধরেন।

উল্লেখ্য যে, ২০১৬ সালে রেবেকা পারিবারিক কারনে গুইমারাস্থ ডাক্তারটিলার বসতভিটা ছেড়ে চট্টগ্রামে তার মা ছখিনা খাতুন ও একমাত্র ভাই চট্টগ্রাম মহসিন কলেজে অধ্যয়নরত এবং উক্ত সংগঠনের ক্রীড়া সম্পাদক রাসেল রানা- দাখিল ২০১১ ব্যাচ এর সাথে বসবাস শুরু করে। নগরীর বন্দর থানাধীন হালিশহর আহমদ মিয়া সিটি করপোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে সে অধ্যয়নরত ছিলো। তার পিতা ফিরোজ খান একজন প্রবাসী এবং মা চাকুরিজীবী ও বড় ভাই বেশিরভাগ সময় পড়ালেখার কারনে বাসার বাইরে থাকার সুযোগে বাড়ির মালিক লম্পট এ.কে খানের কুনজরে পড়ে। গত ০২ অক্টোবর রেবেকা বাসায় অবস্থানকালীন সময়ে আসামী তাকে ধর্ষণ পূর্বক পরবর্তীতে নৃশংসভাবে খুন করে পালিয়ে যায়। আসামী ধরা পড়লেও বিত্তবান ও প্রভাবশালী হওয়ায় রেবেকার পরিবারসহ সকলেই ন্যায় বিচার নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন।

বক্তারা আরো বলেন, খুনি এ.কে খানের মতো এ সমাজে আরো অনেক লম্পট ভালো মানুষের মুখোশ পরিধানকারীর হাতে আমাদের বোন রেবেকার মতো পরবর্তী শিকার হতে পারে। তাই, আমাদের উচিৎ সচেতন হওয়া এবং রেবেকার খুনির সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে সোচ্চার হওয়া। নচেৎ রেবেকার মতো অনেক শিক্ষার্থী বোন লালসার শিকার হয়ে একে একে আমাদের ছেড়ে চলে যাবে।

সভায় দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন, মাদরাসার সহঃ সুপার মাওলানা আ.ন.ম রফিকুল ইসলাম। শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা খোরশেদুল আলম, জসিম উদ্দিন, শামসুল আলম, মোহাম্মদ উল্লাহ,জামাল উদ্দিন ও মাস্টার বাবুল হোসেন সহ প্রমূখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ ইউসুফ, সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক, সম্পাদক নুরুননবী, আরিফুল হক, আনিসুর রহমান (ঢা.বি), আমির হামজা (চ.বি),সদস্য সাইফুল ইসলাম, পারভেজ হোসেন,ওমর ফারুকসহ সদস্যবৃন্দ।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুব রেড ক্রিসেন্টের গুইমারা ইউনিটের যুবপ্রধান মীর বাবলুসহ সাংবাদিক বন্ধুগন। সভাশেষে মরহুমার কবর জিয়ারত পরিচালনা করেন মাওলানা খোরশেদ আলম। সভায় রেবেকার প্রাক্তন সহপাঠীরাসহ মাদরাসার দুই শতাধিক ছাত্র/ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।


আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

রেবেকা সুলতানা পলি হত্যার বিচার ও হত্যাকারী লম্পট বাড়িওয়ালা এ.কে খানের ফাঁসির দাবিতে গুইমারায় বিক্ষোভ, ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার(৭অক্টোবর)সকাল ১০টায় গুইমারা উপজেলা সদরে গুইমারা উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের আয়োজনে বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার হাজারো মানুষ অংশগ্রহন করেন।

যুব রেড ক্রিসেন্ট গুইমারা ইউনিটের যুব প্রধান মীর বাবলুর সঞ্চালনায় মানববন্ধনের বক্তব্য রাখেন, গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান মেমং মারমা, গুইমারা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো:ইউচুফ, হাফছড়ি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার সুইমং মারমা,হাফছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো: সাগর।

বক্তারা বলেন,রেবেকা সুলতানা পলিকে পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে। যা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। চার দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে,তদন্ত সাপেক্ষে পলি হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সবাইকে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন,সুষ্ঠু বিচার নিয়ে কোনো কারসাজি হলে সর্বস্তরের জনতা রাজপথে নেমে কঠোর কর্মসূচী গ্রহন করবে।

উল্লেখ্য, নিহত স্কুল ছাত্রী রেবেকা সুলতানা পলি(১৩),গুইমারা উপজেলার ডাক্তার টিলার মালয়েশীয়া প্রবাসী ফিরোজ খান ও সকিনা খাতুন দম্পতির সন্তান। চট্টগ্রামের হালিশহর আহম্মদ মিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী।চট্টগ্রামের ইয়াংওয়ানে চাকুরীর সুবাদে নিহত পলির মা সকিনা খাতুন এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে ৩৮ নং ওয়ার্ডের কুড়ির পাড়ের একেখানের ৫তলা ভবনের নীচতলায় ভাড়া থাকতেন। মায়ের চাকুরীর কারণে মেয়েকে একায থাকতে হতো বাড়িতে। এ সুযোগে লম্পট বাড়িওয়ালা একেখান(৪০)প্রায় পলিকে কুপ্রস্তাব দিয়ে বিভিন্ন উছিলায় ডিসটার্ব করতো। বিষয়টি মেয়ে তাকে জানালেও তিনি ততটা গুরুত্ব দেননি। ২অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভাড়া বাসা থেকে রহস্যজনক পলির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে বন্দর থানা পুলিশ। পলির মায়ের দাবী পলিকে হত্যা করা হয়েছে। পলির পিঠে আঘাতের চিহ্ন, ঠোঁটে কামড়ের দাগ, গলার নখের দাগ, মুখে হাতের ছাপ, হাতের কব্জি ভাঙ্গা এবং তালুতে আঘাতের চিহ্ন ছিলো। যা বন্দর থানা পুলিশ সুরতহালে রহস্যজনকভাবে উল্লেখ করেনি বলে অভিযোগ করেছে পলির পরিবার।

নিজস্ব প্রতিনিধি :আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হলেন ফেনীর জয়নাল হাজারী। এক সময়ের আলোচিত এই সংসদ সদস্যের উপদেষ্টা পরিষদের অন্তর্ভুক্তির খবর নিশ্চিত করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর সামনে রেখে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, য্গ্মু-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানকসহ বেশ কয়েকজন সিনিয়র নেতা বুধবার গণভবনে গিয়ে তার সাথে সাক্ষাৎ করেন। এসময় জয়নাল হাজারীকে উপদেষ্টা পরিষদে অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি চূড়ান্ত হয়। বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ফেনীর এই সাবেক সংসদ সদস্য। গত সেপ্টেম্বরে জয়নাল হাজারীর চিকিৎসার জন্য ৪০ লাখ টাকা অনুদানও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তাকে ভালোভাবে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।জয়নাল হাজারী ১৯৮৪ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত প্রায় বিশ বছরের বেশি সময় ধরে ফেনী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনী-২ আসন থেকে ১৯৮৬, ১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালে তিনবার সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি। ২০০১ সালের ১৭ আগস্ট যৌথবাহিনীর অভিযানের মুখে ফেনী থেকে দেশান্তরী হন একসময়ের দাপুটে আওয়ামীলীগ নেতা জয়নাল হাজারী। নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডের অভিযোগে ২০০৪ সালে দল থেকে বহিষ্কৃত করা হয় হাজারীকে। ২০০৯ সালে মামলার স্তুপ নিয়ে দেশে ফিরেন। একেএকে সব মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেও হারানো প্রভাব ফিরে পাননি। ২০১০ সাল থেকেই রাজধানীতে বসবাস করছেন। জয়নাল হাজারী ‘হাজারিকা প্রতিদিন’ নামে একটি দৈনিক পত্রিকা সম্পাদনা করেন।

আবুল হোসেন রিপন, (গুইমারা)খাগড়াছড়ি

৭বছর পর অনুষ্ঠিত হল খাগড়াছড়ি জেলার প্রানকেন্দ্র গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল। ২৮সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা সম্পন্ন ভারত প্রত্যাগত শরনার্থী বিষয়ক টাক্সফোর্স চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্ব বিশ্বব্যাপী প্রসংশিত হয়েছে বলেই তিনি ইউনিসেফ কর্তৃক “চ্যাম্পিয়ন অব স্কিল ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ূথ” পুরস্কারে ভুষিত হয়েছেন।

শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে পার্বত্যাঞ্চলে উন্নয়নের জোয়ার বইছে মন্তব্য করে তিনি আরো বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে যোগ্য নেতৃত্বের বিকল্প নাই।
গুইমারা টাউন হলে সাংগঠনিক সম্পাদক সুইমং মারমার সঞ্চালনায় ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের প্রথম অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন বিদায়ী উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক মেমং মারমা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা রণ বিক্রম ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি সামছুল হক, জেলা পরিষদ সদস্য আবদুল জব্বার, আশুতোষ চাকমা, কল্যান মিত্র বড়ুয়া প্রমুখ।

জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে কাউন্সিলের উদ্বাধন করেন, ভারত প্রত্যাগত শরনার্থী বিষয়ক টাক্সফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। কাউন্সিলে প্রধান বক্তা ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চোধুরী। এতে মাটিরাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ঝর্না ত্রিপুরা ছাড়াও কাউন্সিলর, ডেলিগেটর, উপদেষ্টা কমিটির সদস্যবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা, ও জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত নেতাকর্মী ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
দ্বিতীয় অধিবেশনের কাউন্সিলের মুল কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বর্তমান উপজেলা কমিটি বিলুপ্তি ঘোষনার পর প্রস্তাব ও সমর্থনের ভিত্তিতে প্রার্থী বাছাই করা হয় ও কাউন্সিলের মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, ও সাধারন সম্পাদক মেমং মারমাকে সহ বিভিন্ন পদে নেতা নির্বাচন করেন কাউন্সিলররা।
এদিকে কাউন্সিলকে ঘিরে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্য ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে।

আবুল হোসেন রিপন (গুইমারা) খাগড়াছড়ি

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন-১৯ আজ শনিবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সকাল থেকে অনুষ্ঠিতব্য এ কাউন্সিলকে ঘিরে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা ও নানা জল্পনা-কল্পনার আর গুঞ্জন চলছে।
এতে প্রধান অতিথি থাকবেন, ভারত প্রত্যাগত উপজাতীয় শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম এর সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি থাকবেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রণ বিক্রম ত্রিপুরা, সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দরা এতে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে।

ইতিমধ্যেই গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের এ সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। এ সম্মেলনে গুরুত্বপূর্ণ পদে এবার নেতাকর্মীরাই ভাগ্য নির্ধারণ করবেন দলের কাণ্ডারীদের। তবে কারা হচ্ছে এ উপজেলার নেতৃত্বের যোগ্য ব্যক্তি তা দেখায় এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

সম্মেলনে এবার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি-সম্পাদকসহ গুরুত্বপুর্ণ পদে দলীয় নেতাকর্মীদের ভাগ্য নির্ধারণের তালিকায় থাকছেন,গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম,সাধারন সম্পাদক মেমং মারমা, সাংগঠনিক সম্পাদক আইয়ুব আলী মেম্বার, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক নুরুন নবী, উপজেলা উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতা রোস্তম তালুকদারসহ আরো অনেকেই দলের নির্বাহী পদে স্থান পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

গুইমারা উপজেলা হওয়ায় দলীয় ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের মাধ্যমে নেতা নির্বাচনের পর ফিরবে দলের প্রাণ। নির্ভেজাল, দূর্নীতিমুক্ত ও নেতাকর্মী বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করার পাশাপাশি আরো গতিশীল ও শক্তিশালী হবে দলের সকল কার্যক্রম এমনটাই প্রত্যাশা এ উপজেলার দলীয় নেতাকর্মীদের।