মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ গত ২৩শে ফেব্রুয়ারী রোজ রবিবার সিলেট বিভাগের জনগোষ্ঠীর প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী সংগঠন, জালালাবাদ এসোসিয়েশন। অমর একুশে ফেব্রুয়ারি জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ইতালির পালেরমোতে জালালাবাদ এসোসিয়েশন পালেরমোর উদ্যোগে এক বর্নমালা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। পালেরমোর স্থানীয় একটি হল রোমে বিপুল সংখ্যক শিশু কিশোরদের উৎসবমুখর অংশগ্রহণের অনুষ্ঠান হল রূপ নিয়েছিল এক মিলন মেলায়।

বিদেশের মাটিতে জন্ম ও বেড়ে উঠা আগামী প্রজন্মের কাছে আমাদের ভাষা আন্দোলনের রক্ত মাখা ইতিহাস, ঐতিহ্য, গুরুত্ব রং তুলির ও সুরে সুরে তুলে ধরতে চিত্রাঙ্গন হাতের লেখা ছড়া কবিতা আবৃত্তি ও দেশাত্মকবোধক গানের প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।
প্রতিযোগিতা শেষে অমর একুশে শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জালালাবাদ এসোসিয়েশন পালেরমোর শাখার সভাপতি ফারহানাজ তানজিন জুলিয়া এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম রুশন মিয়ার প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন এসোসিয়েশনের প্রধান সমন্বয়কারী সাহেদ আহমেদ চৌধুরী(মাস্টার সেলিম),উপদেষ্টা মোঃ আবু শহীদ ,সিনিয়র সহ সভাপতি রতন কুমার ঘোষ,প্রধান কার্যনির্বাহী সদস্য জিল্লুর রহমান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ ফেরদৌস আলম তালুকদার ,ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ভূপেন্দ্র সূত্রধর ভূবন, কোষাধক্য লাভলু মিয়া, দপ্তর সম্পাদক আতাউর মিয়া, প্রচার সম্পাদক মুক্তার মিয়া, ধর্ম ও শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম, সদস্য জামিল হোসেন, ইউনুস মিয়া, আসকির মিয়া, কাবিল মিয়া প্রমুখ।
বক্তারা বলেন একুশের পথ ধরেই আমরা স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, লাল-সবুজের পতাকা আর আত্মপরিচয়ের অধিকার অর্জন করেছি। বাংলা ভাষাকে প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্ম ও সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে নিজ নিজ জায়গা থেকে আন্তরিক ভাবে কাজ করতে হবে।

সভা শেষে বিজয়ী প্রতিযোগীদের হাতে পুরুস্কার তুলে দেন পালেরমোর কমুনির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও জালালাবাদ এসোসিয়েশন পালেরমো শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডালিয়া আক্তার সুমি, Consiglio d’ Istituto I.C.S. Perez-madre teresa di calcutta র উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি সামসুল হক আঁখি ,পালেরমো বিএনপির সভাপতি বদরুল আলম শিপু ,সিসিলি আওয়ামীলীগের আহ্ববায়ক জাহিদ খান মিহির, বাংলাদেশ সমিতি ইউরো মেডিতেররানেয়া পালেরমোর সভাপতি মিয়া মহসিন সরকার, বি. এন. পি নেতা আব্দুল কাদের প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় অমর একুশে সঙ্গীত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়।