চাঁদপুর প্রতিনিধি : করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ২৭ মার্চ শুক্রবার দুপুরে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল (সদর) হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তিকৃত তরুণ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নন। তার নমুনা সংগ্রহ করে টেস্ট করার পর এই তথ্য জানিয়েছে আইইডিসিআর। রোববার সকালে আমাদের প্রতিনিধি কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল। এতে করে চাঁদপুরে জনমনে স্বস্তি বিরাজ করছে।

ওই তরুণের (১৬) বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলায়। জানুয়ারি মাসের ২০/২২ তারিখে বাবা-মায়ের সাথে রাগ করে সুমন ঢাকায় চলে আসে। সে ১৭ মার্চ থেকে জ্বর, সর্দি কাশি এবং শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিল। তার কাছে পরিবারের কারো মোবাইল নাম্বর এবং কারো সাথে কোন প্রকার যোগাযোগ নেই বাড়ি ছাড়ার পর থেকে।
কয়েক দিনের অসুস্থতার কারণে রাস্তার পড়ে থাকলে সদরঘাটের লোকজন তাকে লঞ্চের যাত্রী মনে করে চাঁদপুরগামী একটি লঞ্চে উঠিয়ে দেয়। গত কয়েকদিন চাঁদপুরের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করলে করোনায় আক্রান্ত বলে জনমনে সন্দেহ বিরাজ করে, ২৭ মার্চ শুক্রবার দুপুরে সে চাঁদপুর ওয়্যারলেচ এলাকা থেকে উদ্ধার করে তাকে অসুস্থ অবস্থা এলাকার লোক জনের সহায়তায় শুক্রবার দুপুর ১ টায় সময় চিকিৎসার জন্য তাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

এতে চাঁদপুর সদর হাসপাতালের ডা. হাসিবুল জানান, তার অসুস্থতার অবস্থা দেখে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের লক্ষণ সন্দেহ হলে তিনি বিষয়টি তাৎক্ষণিক হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. হাবিব উল করিম, সহকারী পরিচালক ডা. মাহবুবুর রহমান এবং আরএমও ডা. সুজাউদৌল্লা রুবেলসহ একটি টিম গঠন করে আলোচনা করে সুমনের অসুস্থতান বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা কেন্দ্রের (আইইডিসিআর) কট্রোল রুমে যোগাযোগ করেন। তখন আইইডিসিআর থেকে ওই তরুণকে ঢাকা না পাঠিয়ে হাসপাতালের প্রস্তুতকৃত আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়। বিকেলের মধ্যেই চাঁদপুরে এসে আইসোলেশনে থাকা অসুস্থ তরুণের নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যায় আইইডিসিআর কট্রোল রুম বিভাগের একটি টেকনোলজিস্ট টিম।