ইতালী

রোমে ফেসবুকে দালালদের বিরুদ্ধে স্টাটার্স দেওয়ায় ,মিন্টুর বিরুদ্ধে অপ্রচার।


ইতালি প্রতিনিধিঃ
ইতালি আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এম এ রব মিন্টু সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রোম দূতাবাসের দালালদের বিরুদ্ধে ফেসবুক ষ্টাটার্স দেওয়ায় রোমের চিন্হিত দালাল চক্র তার বিরুদ্ধে অপ্রচারে লিপ্ত হয়েছেন।
এম এ রব মিন্টু বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফিনল্যাণ্ড সফরকালে ইতালি প্রবাসীদের পাসপোর্ট সমস্যার কথা তুলে ধরি। এ সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভুক্তভোগীদের তালিকা চেয়ে বলেন ইতালি প্রবাসী ভুক্তভেগীদের তালিকা করে আমার কাছে পাঠাও। এই মর্মে রোমে এসে ফেসবুকে ভুক্তভোগিদের তালিকা চেয়েছি। তালিকা চাওয়ায় রোমের চিন্হিত দালাল এবং দালালদের চামচারা আমার বিরুদ্ধে অপ্রচার শুরু করেছে। এ দিকে এম এ রব মিন্টুর বিরুদ্ধে অপ্রচার করায় প্রতিবাদী হয়ে উঠছে সাধারন ভুক্তভোগী প্রবাসীরা। খোজ নিয়ে জানা গেছে এম এ রব মিন্টুর বিরুদ্ধে অপ্রচারের পিছনে তিনটি কারনে। আসন্ন ইতালি আওয়ামী লীগের সম্মেলনে এম এ রব মিন্টু সাধারন সম্পাদক পদে শক্তিশালী প্রার্থী । রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলে এমন অপ্রচার তার বিরুদ্ধে । যারা পোন্তামেন্ত এনে দেওয়ার কথা বলে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিত। এম এ রব মিন্টুর বিরুদ্ধে অপ্রচার চালিয়ে বরিশালের কতিপয় লোককে খুশি করা। এ ছাড়াও বিগত দিনের বিভিন্ন আক্ষেপ মিটানে। তবে গুটি কয়েক লোক অপ্রচার চালালোও সাধারন প্রবাসীরা তার পাশে রয়েছে। খেতাপ পেয়েছেন ভুক্তভোগী প্রবাসীদের আপনজন হিসাবে। এর পূর্বে ইতালিতে বৈধতা দেওয়া হবে এমন মিথ্যা ফেসবুক লাইভের বিরুদ্ধে এম এ রব মিন্টুর সক্রিয় ভূমিকা রাখে । তিনি অবৈধ প্রবাসীদের সঠিক সংবাদটি প্রচার করেন। এদিকে ইতালি আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এম এ রব মিন্টুর বিরুদ্ধে অপ্রচারের সঙ্গ দিচ্ছেন রোমের বিতর্কিত সাংবাদিক হাসান মাহামুদ গং। ইতালি বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি খান রিপন বলেন দালাল সব সময় দালালই থাকে। তারা জন্মগত দালাল। এম এ রব মিন্টু তাদের ধান্ধা বন্ধ করে দিয়েছে। ধন্যবাদ জানাই মিন্টু ভাইকে যিনি সঠিক সময়ে সাহসী ভূমিকা রেখেছে।গুটি কয়েক দালালের অপ্রচারে কিছুই যায় আসে না। এ দিকে ইতালি আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর ফরাজী তার ফেসবুকে লিখেছেন এগিয়ে যান মিন্টু ভাই ভাল কাজে বাধাঁ আসবেই ।