Dhaka, Bangladesh
    বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯
    ২৩ Rabi' I, ১৪৪১
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ৪:৫৭ পূর্বাহ্ণ
    সূর্যোদয়ভোর ৬:১৬ পূর্বাহ্ণ
    যোহরদুপুর ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ
    আছরবিকাল ২:৫০ অপরাহ্ণ
    মাগরিবসন্ধ্যা ৫:১২ অপরাহ্ণ
    এশা রাত ৬:৩০ অপরাহ্ণ
Facebook By Weblizar Powered By Weblizar

মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ
ইতালি আওয়ামী লীগের আসন্ন ত্রি বার্ষিক সম্মেলন কে সামনে রেখে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে নির্বাচন প্রস্তুতি কমিটি।এই সংগঠনটিকে যারা দ্বিধাবিভক্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে তাদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির নেতারা । ৪ নভেম্বর রবিবার রাজধানী রোমে বাঙালি অধ্যুষিত ও ব্যবসায়িক এলাকা পিয়াচ্ছা ভিক্টোরিয়ার অত্যন্ত জনপ্রিয় রেস্টুরেন্ট ফুড অফ রোমার হলরুমে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক জি এম কিবরিয়া ও সদস্য সচিব আবু সাঈদ খান আগামী ২৯ শে মার্চ
অনুষ্ঠেয় কাউন্সিলকে সফল করতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।
এই সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম লোকমান হোসেন, প্রস্তুতি কমিটির সদস্য ও কমিশনারদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, হাবীব চৌধুরী, হাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শাহ আলম, দিদারুল আবেদীন, লিটন হাজারী, মজিবর শিকদার সহ আরো অনেকে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। নির্বাচন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক জি এম কিবরিয়া সকল মুজিব আদর্শের সৈনিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান। এবং সম্মিলিত ভাবে ২৯ মার্চের ত্রি বার্ষিক সম্মেলন কে সফল করার জন্য কাজ করতে বলেন।
এই সময় ইতালী আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আবু তাহের, হাবীব মোকদম, বাবু ঢালী, শেখ মামুন, নয়না আহমেদ, শামিমা পপি, জহিরুল ইসলাম সহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।
আসন্ন কাউন্সিলে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কোনো নেতাকে প্রধান অতিথি এবং সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানকে বিশেষ অতিথি করার কথাও জানান তারা। এই কাউন্সিলে ৪০ হাজার ইউরো বাজেট ধরা হয়েছে বলে জানা গেছে।

মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ
জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে দিবসটি পালন করেছে ইতালী আওয়ামী লীগ। বঙ্গবন্ধু এবং তার বিশ্বস্ত চার নেতাকে যারা হত্যা করেছে তারা এখনো সুযোগ খোঁজচ্ছে, আমাদেরকে সর্বদা সর্তক থাকতে হবে। ৩ নভেম্বর শোকাবহ জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে ইতালী আওয়ামী লীগের সভায় বক্তরা।

ইতালী আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস ফরাজীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবালের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর দ্বিতীয় কলঙ্কজনক অধ্যায় রচিত হয় এই দিনে। কারাগারে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকা অবস্থায় বর্বরোচিত এ ধরনের হত্যাকাণ্ড পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল বলেও উল্টেলখ করেন তারা।

বক্তারা আরও বলেন, জাতীয় চার নেতার হত্যার মধ্য দিয়ে যেদিন দেশের স্বাধীনতা ও আওয়ামী লীগকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেয়ার অপচেষ্টা করেছিল। ঐ কালো শক্তি এখনো বিদ্যমান, তাই আমাদেরকে সর্বদা সর্তক থাকতে হবে।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ইতালী আ’লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক এম কিবরিয়া ও বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার লোকমান হোসেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগের সকল অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ইতালি আওয়ামী লীগের আসন্ন কাউন্সিলকে সামনে রেখে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে নির্বাচন প্রস্তুতি কমিটি। এ উপলক্ষে এক সাংবাদিক সন্মেলনে ইতালী আওয়ামী লীগকে যারা দ্বিধাবিভক্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে তাদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির নেতারা।
রাজধানীর রোমে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক জি এম কিবরিয়া ও সদস্য সচিব আবু সাঈদ খান আগামী ২৯ শে মার্চ অনুষ্ঠেয় কাউন্সিলকে সফল করতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।
এই সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম লোকমান হোসেন, প্রস্তুতি কমিটির সদস্য হাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শাহ আলম, দিদারুল আবেদীন, মজিবর শিকদার সহ আরো অনেকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন।
ইতালী আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আবু তাহের, আফতাব ব্যাপারী সহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।
আসন্ন কাউন্সিলে সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানকে বিশেষ অতিথি রেখে বাংলাদেশ আ’লীগের কেন্দ্রীয় কোনো নেতাকে প্রধান অতিথি করার কথাও জানান নেতারা।

মেহেনাস তাব্বাসুম শেলির রিপোর্টঃ
স্পেন বিএনপি কর্তৃক জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস অনুষ্টিত হয়েছে |গতকাল মাদ্রিদ এর মেহমান খানা রেস্টুরেন্টে এ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় |সভার শুরুতেই বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার সম্মানে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা ও রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয় |স্পেন বিএনপির সভাপতি খোরশেদ আলম মজুমদারের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সোহেল ভূঁইয়ারএবং সাংগঠনিক সম্পাদক আবু জাফর রাসেলের যৌথ সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন ,সিনিয়র সহ-সভাপতি মোজাম্মেল হক মনু ,সহ-সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির ,মাহবুবুর রহমান জনটু ,মোরশেদ আলম তাহের ,শামসুর রহমান নাসিম ,আনোয়ারুল আজিম ,স্পেন যুবদলের সভাপতি রমিজ উদ্দিন সরকার ,সহ সাধারন সম্পাদক জাকির ইসলাম জাকি ,হুমায়ুন কবির রিগ্যান , আকবর শেঠ ,কাজী জসিম ,সহ সংগঠনিক সম্পাদক জয়নাল আবেদিন রানা ,বিএনপি নেতা শাহাবুদ্দিন ছমির আলি জুলহাস মিয়া ,আখতার হুসেন প্রমুখ |বক্তার বলেন.. আমাদের জাতীয় জীবনে এ দিবসটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য অপরিসীম। ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর দেশের সিপাহী-জনতা ঐক্যবদ্ধভাবে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে এ দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে হেফাযত করেছিলেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়ার রহমান |আজকের সময়ের প্রয়োজনে গনত্রন্ত্র ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে একটি গণঅভ্যুত্থানের দাবি ,সর্বত্র |


মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ
ইতালী রাজধানী রোমে ৩নং মুনিসিপিও ইতালীয়ান ফিডেন স্কুলের ব্যাবস্থাপনায় ও রোমের বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালী সহ সভাপতি এম ডি আব্দুল ওয়াদুদের উদ্যোগে প্রবাসে বসবাসরত মায়েদের জন্য ইতালীয়ান ভাষা শিক্ষা স্কুলের আনুষ্ঠানিক ভাবে যাত্রা শুরু করে।

গত ৫ই নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালী সহ সভাপতি এম ডি আব্দুল ওবায়দুদের সার্বিক সহযোগিতায় স্কুলের সময়সূচি আনুষ্ঠানিক ভাবে সকলকে জানিয়ে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে ফিডেন স্কুলের মূল্যায়ন কারী claudia pratelli প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্কুলের কাউন্সিলর Angela silvestorini, Vice president claudio silvestri, Insegniante (teacher) antonella Miceli, রোমের কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব এম ডি আব্দুল ওয়াদুদ সহ প্রমুখ।

আনুষ্ঠানিকভাবে এ স্কুলের যাত্রার আয়োজিত অনুষ্ঠানে এম ডি আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, ইতালীতে ইতালীয়ান ভাষার স্কুল প্রতিষ্ঠা করা একটি গৌরব ও সম্মানের বিষয়। আমি বিশ্বাস করি এই স্কুল প্রতিষ্ঠার ফলে ইতালীতে বসবাসরত বাংলাদেশের ও অন্যান্য দেশের যত মায়েরা তাদের শিশুদের স্কুলে পাঠান কিন্তু অনেক সময় বাচ্চার কোন সমস্যা জানতে স্কুলে ইতালীয়ান শিক্ষকদের সাথে কথা বলার জন্য ও বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রে তাদের ইতালীয়ান ভাষা জরুরি হয়ে পড়েছে। তাই আমি মনে করি এই স্কুলের মাধ্যমে মায়েরা যখন ইতালীয়ান ভাষা শিক্ষা গ্রহণ করবে তারা অনেক উপকৃত হবে। তিনি আরো বলেন, বিদেশের মাঠিতে ইতালীয়ান ভাষা স্কুল প্রিতিষ্ঠা করা সহজ সাধ্য বিষয় নয়। অনেক প্রতিকূলতা অতিক্রম করে আজকের এ পর্যায়ে আসতে হয়েছে।

এই দুরুহ কাজটিতে সহজ করার জন্য যারা অনেক পরিশ্রম করেছেন তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। তিনি স্কুলের ইতালীয়ান কতৃপক্ষ যারা তাকে নানাভাবে সহযোগিতা করেছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানান। শেষে তিনি কমিউনিটির দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, শুধু রোমে নয় ইতালীর প্রতিটা প্রভিন্সে যেন বাংলা কমিউনিটি নেতৃবৃন্দরা এরকম উদ্যোগ হাতে নেয়, যাতে প্রবাসে বসবাসরত নারী পুরুষরা ইতালীয়ান ভাষা গ্রহণ করে বিদেশীদের অধিকার আদায় করতে পারে। এবং এই স্কুলের ভাষা শিক্ষার সার্টিফিকেট ইতালীয়ান সরকারি রেজিস্ট্রেশনকৃত বলে জানানো হয়। সেই সাথে তিনি উপস্থিত ইতালীয়ান ও বাংলাদেশি সাংবাদিকদেরকে এরূপ একটি মহৎকাজ বিশ্বের দরবারে সুন্দরভাবে তুলে ধরার জন্য আহ্বান জানান।

শেষে স্কুলের মূল্যায়ন কারী claudia pratelli উপস্থিত বাংলাদেশি সহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের নাম রেজিস্ট্রেশন করে সবাইকে স্কুলের আসার তারিখ সময়সূচি জানিয়ে দেন এবং স্কুলে এসে ক্লাস করার আহ্বান করেন।

আবুল হোসেন রিপন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি,

খাগড়াছড়ির গুইমারা থানার এক বছরের সাজা প্রাপ্ত পলাতক আসামী কৃষ্ণ মোহন ত্রিপুরা (৩০) অরুপে ফাটা কৃষ্ণ গুন্ডা কে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত কৃষ্ণমোহন ত্রিপুরা গুইমারা উপজেলার সদর ইউনিয়নের মুসলিম পাড়া গ্রামের ওপেন্দ্র ত্রিপুরার পুত্র।

গত বুধবার দুপুরে ১.৩০টার সময় গুইমারা থানা অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ বড়ুয়ার নির্দেশনায়, এসআই, আব্দুল কাদের এর নেতৃত্বে ফোর্স সহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১ বছরের সাজাপ্রাপ্ত জিআর মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী কৃষ্ণ মোহন ত্রিপুরাকে গ্রেফতার করা হয়।

গুইমারা থানার এসআই আব্দুল কাদের জানান, দীর্ঘদিন যাবত সে পলাতক ছিল। সুকৌশলে তার ফোন নাম্বার সংগ্রহ করে গ্রেপ্তারের উদ্দেশ্য মহিলা পুলিশ সদস্যের মাধ্যমে তাকে প্রেমের ফাঁদে জরানো হয়। পরে সে প্রেমের আকৃষ্ট হয়ে দেখা করতে আসলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গুইমারা থানা অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ বড়ুয়া সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃত আসামী কৃষ্ণ মোহন ত্রিপুরা (গুন্ডা ফাটা কৃষ্ণ) জিআর মামলার এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী। দীর্ঘদিন যাবত সে পলাতক ছিলো।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ির গুইমারাতে পাহাড় কাটা’সহ বিভিন্ন অপরাধে দুই ব্যক্তিকে ১লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। দুপুরে উপজেলার কালাপানি ও পশ্চিম বড়পিলাক এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা আদায় করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তুষার আহমেদ। এসময় অবৈধ ভাবে পাহাড় কেটে কাঠের ঘর নির্মান করায় বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষন আইন-১৯৯৫ সালের ৬এর(খ) ধারায় কালাপানি-আমতলী এলাকার বাসিন্দা মোঃ মজিবর(৩৫), পিতা মোহাম্মদ উল্লাহ’কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এছাড়াও এম.বি.বি.এস ডিগ্রী ব্যতীত ডাক্তার পদবী ব্যবহার করায় বাংলাদেশ মেডিকেল এবং ডেন্টাল কাউন্সিল আইন-২০১৩ এর-১ ধারায় পশ্চিম বড়পিলাক এলাকার বাসিন্দা মোঃ দলীল উদ্দিনের ছেলে মোঃ ছরোয়ার হোসেন’কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এসময় গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ কুমার বড়ুয়া, উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা রাজ কুমার শীল’সহ স্থানীয় গনমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তুষার আহমেদ জানান, পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে অবৈধ ভাবে পাহাড় কাটা ও বালু উত্তোলনে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। আইনগত যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়িতে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ কার্যকর করতে জনসচেতনতামূলক মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করেছে জেলা পুলিশ। দুপুরে পৌর শহরের শাপলা চত্ত্বরসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও সড়কে এ প্রচারণা চালানো হয়।

দুর্ঘটনা এড়াতে চালক, যাত্রী ও মালিকদের করণীয় সম্পর্কে সচেতন করতে খাগড়াছড়ি ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক (টি আই) সুপ্রিয় দেবে’র নেতৃত্বে বিভিন্ন সড়কে এ লিফলেট বিতরণ করা হয়। একইসাথে সড়ক পরিবহন আইন মেনে চলতে ও সাধারণ জনগণকে উদ্ধুদ্ধ করতে করা হয় মাইকিং। এসময় মোটর সাইকেল আরোহীদের হেলমেট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, রেজিস্ট্রেশন, ট্যক্স টোকেনসহ ফিটনেস বিহীন যানবাহন না চালাতে সতর্ক করা হয়।

সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণকালে সার্জেন্ট তরুণ দাশ ও ফারুক হোসাইনসহ দায়িত্ব পালনকারী ট্রাফিকরা উপস্থিত ছিলেন।

খাগড়াছড়ি ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক সুপ্রিয় দেব বলেন, পুলিশ সপুারের নিদের্শমতে জনগণকে সড়ক পরিবহন আইন জানার পাশাপাশি সতর্ক ও উদ্বুদ্ধ করতে সপ্তাহব্যাপী লিফলেট বিতরণ কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। যাতে করে জনগণ আইনের শ্রদ্ধাশীল হোন। জনসচেতনতামূলক এ কার্যক্রমে সাধারণ মানুষের সাড়া পাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন এ ট্রাফিক পুলিশের এ কর্মকর্তা।

কামরুল,মীরসরাইঃ মীরসরাই উপজেলার ১নং করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ অলিনগরে দক্ষিণ অলিনগর স্পোর্টস ক্লাব কর্তৃক আয়োজিত ঘরোয়া মিনিবার ফুটবল টূর্ণামেন্টে লিভারপুল চ্যাম্পিয়ন। ট্রাইবেকারে লিভারপুল ৩-০ গোলে ম্যানসিটিকে পরাজিত করে। গত ১ই নভেম্বর শুক্রবার বিকাল ৩টায় দক্ষিণ অলিনগর আবাসন সংলগ্ন মাঠে অনুষ্টিত হয়। উক্ত ক্লাবের সদস্যদের মধ্যে গত ৩ই অক্টোবর  ঘরোয়া পরিসরে ৫টি দলে বিভক্ত হয়ে গ্রুপ পর্বের মাধ্যমে লিভারপুল ও ম্যানসিটি ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়।
পৃথিবীর অন্যতম জনপ্রিয় খেলা এই ফুটবল। ফুটবলের হারানো ঐতিহ্য ফিরে পেতে গ্রাম পর্যায়ে এরকম আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন শাহাজাহান মাস্টার, জহির উদ্দিন ভূঁইয়া (প্রতিষ্ঠাতা দক্ষিণ অলিনগন স্পোর্টিং ক্লাব), মোঃ সামসুদ্দিন,মাঈন উদ্দিন রিপন,সাংবাদিক কামরুল, বেলায়েত হোসেন, নজরুল ইসলাম, ফখরুল ইসলাম বাবলু, দক্ষিন অলিনগর যুব ও তরুন সংঘের সভাপতি পিন্টু
সহ সভাপতি সোহেল সহ উক্ত ক্লাবের একাধিক সদস্য সহ উপদেষ্টা মোশারফ।
খেলা পরিচালনা করেন রাসেল এবং সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিল দক্ষিণ অলিনগর স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি জাহিদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক- আরিফ হোসেন এবং ক্রীড়া সম্পাদক- করিম।

মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ
দীর্ঘ ৮ বছর পর ইতালি আওয়ামী লীগ কাউন্সিল অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। ২০২০ সালের মার্চ মাসে এ কাউন্সিল হতে পারে বলে ইতালী আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়া নির্বাচন পরিচালনার জন্য সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে জিএম কিবরিয়া এবং প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে কে এম লোকমান হোসেনের নাম গৃহীত হয়েছে এই সভায়। ২৫ অক্টোবর শুক্রবার রোমের স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টের হলরুমে কার্যকরী পরিষদের এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কার্য নির্বাহী কমিটির এই সভায় সভাপতিত্ব করেন ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোঃ ইদ্রিস ফরাজী ও পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল। আগামী তিনদিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশন ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির অন্যান্য সদস্যের নাম ও সম্মেলনের চূড়ান্ত তারিখ ঘোষনা করা হবে। কার্যনির্বাহী কমিটির এই সভায় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাহতাব হোসেন, সিনিয়র সহ সভাপতি আবু সাইদ খান, হাবীব চৌধুরী, হাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, ইকবাল হোসেন,রব ফকির, হাদিউল ইসলাম,সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আফতাব বেপারী, শোয়েব দেওয়ান, আবু তাহের সহ কার্যকরী পরিষদের নেতৃবৃন্দ। সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, যারা অসাংগঠনিক ভাবে ইতালি আওয়ামী লীগকে দ্বিখন্ডিত করেছে তাদের আজীবন বহিষ্কারসহ যারা ঐ বিতর্কিত সংগঠনের পদ পদবী ব্যবহার করবে তাদের শোকজ নোটিশ পাঠানোর জন্য। শোকজ নোটিশের জবাব না দিলে ওই নোটিশই স্থায়ী বহিষ্কার হিসেবে গণ্য করা হবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

মিনহাজ হোসেন ইতালী প্রতিনিধিঃ
দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহিষ্ণুতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেশব্যাপী শুদ্ধি অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে ইতালি আওয়ামী লীগের আয়োজনে ইতালীর রোমে সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে । ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোঃ ইদ্রিস ফরাজীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবালের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন, আসুন আমরা যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অধিকারী, দেশ ও জনগণের কল্যাণ প্রত্যাশী তারা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কাজ করি।

দেশ ও জনগণের আর্থসামাজিক উন্নয়নের স্বার্থে দলমত-নির্বিশেষে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। দেশের মত ইতালিতেও শুদ্ধি অভিযান চলবে, যা ইতালি আওয়ামী লীগকে করবে আরও শক্তিশালী ও গতিশীল। দেশে দুর্নীতিবিরোধী শুদ্ধি অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে মত বিনিময় সভার সভাপতিত্বের বক্তব্যে বলেন, ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোঃ ইদ্রিস ফরাজী।

ইতালি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণের যে অঙ্গীকার জননেত্রী নির্বাচনের পর জাতির কাছে করেছিলেন, সেটার সত্যিকার বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী ও ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন রাখতে হলে দুবৃত্তদের বিরুদ্ধে মোকাবেলা করতে হবে।

এসময় বক্তব্য রাখেন সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি কে.এম লোকমান হোসেন, ইতালি আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি হাবীব চৌধুরী, জসিম উদ্দিন, আব্দুর রব ফকির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফতাব ব্যাপারী, সোয়েব দেওয়ান, আবু তাহির, মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর রহমান, দপ্তর সম্পাদক হাবীব মকদম, আইন বিষয়ক সম্পাদক ফারুক খালাসি, সদস্য বাবু ঢালী, মজিবর সিকদার ও ফারুক ফরাজী সহ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এনায়েত করিম, আলাউদ্দিন শিমুল, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নয়না আহম্মেদ, রোম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ মামুন, সাধারণ সম্পাদক খলিল বন্দুকসি, শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুর আহমেদ, আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের সভাপতি মুজাহিদ হোসেন রতন সহ তুসকোলানা ও রোমা নর্দ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

সভায় বক্তারা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠা তথা দ্রুততম সময়ে উন্নত দেশ গড়ার যে লক্ষ্য নিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা কাজ করছেন, ইতালি আওয়ামী লীগের শুদ্ধি অভিযানের মধ্যদিয়ে জননেত্রীর পাশে থেকে বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখতে হবে।

এসময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ছেলে শহীদ শেখ রাসেলের ৫৬তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান এবং সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ‘সেরা রেমিন্টেস ২০১৮’ সম্মাননা অর্জন করায় ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ন্যাশনাল এক্সচেঞ্জ কোম্পানীর কর্ণধার হাজী মোঃ ইদ্রিস ফরাজীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান নেতৃবৃন্দ।

রাজিব রহমান ইতালী থেকে :- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক বাংলাদেশে দূনীতি বিরোধী অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে, নবগঠিত ইতালী আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার রাতে রোমের বাঙ্গালী অধ্যুষিত তরপিনাত্তারার রসই রেস্টুরেন্টের হল রুমে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পবিত্র কোরআন থেকে তেলোআতের মধ্য দিয়ে উক্ত অনুষ্ঠান শুরু হয়। কানায় কানায় পরিপূর্ন হল রুমের শত শত নেতা কর্মী মুহুর্মুহ শ্লোগানের মধ্য দিয়ে নবগঠিত ইতালী আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটিকে স্বাগত জানান।পিন পতন নিরবতার মধ্যদিয়ে পুরো অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়।

ইতালী আওয়ামী লীগের নব নির্বাচিত সভাপতি ,জাহাঙ্গীর ফরাজীর সভাপতিত্বে এবং নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এম এ রব মিন্টু ও যুগ্ম সাধারন আব্দুর রহমানের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা, বীর মুক্তিযাদ্ধা, ইতালী আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলী আহম্মদ ঢালী।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইতালি আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম মাঝি. সহ সভাপতি সরদার লুৎফর রহমান. জামান মোক্তার. যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মন্নান মাতব্বর মন্জু, মাসুদুর রহমান সিদ্দিকী , সাংগঠনিক সম্পাদক: স্বপন হাওলাদার. এ আর আহমেদ তপু , কবির হোসেন. মজিবর রহমান মুজিব প্রমুখ।

সভাপতি জাহাঙ্গীর ফরাজী তার বক্তব্যে বলেন ইতালী আওয়ামীলীগের প্রতিটি নেতা কর্মী মনে করেন ,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনার প্রতিটি পদক্ষেপ দেশের জন্য মঙ্গলজনক।
আমরা তার পাশে সর্বদা আছি থাকব। তিনি আরও বলেন, প্রবাসে যারা অবৈধভাবে দলীয় পরিচয় দিয়ে বিপুল অর্থের মালিক হয়েছেন কিংবা বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত তাদের ও বিচারের আওতায় আনতে হবে।
তিনি নব নির্বাচিত কমিটিকে ইতালীতে আরো সক্রিয় হয়ে দূনীতি বিরোধী অভিযান কে আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে, বংঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার আহবান জানান।

সাধারণ সম্পাদক এম এ রব মিন্টু দূর্নীতি বিরোধী অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে বলেন আমরা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আদর্শে বিশ্বাসী, আমরা কারো রক্ত চুক্ষকে ভয় পাইনা, আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার পাশে থেকে তার হাতকে আরো শক্তিশালী করে যাবো ইনশাল্লাহ।

সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম মাঝি বলেন শেখ হাসিনার সুদক্ষ নেতৃত্বের জন্য বাংলাদেশ আজ সারা বিশ্বের উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একদিকে মমতাময়ী মা অন্যদিকে একজন পরিশ্রমী ও সফল রাষ্ট্র নায়ক।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের আরও বক্তব্য রাখেন , দপ্তর সম্পাদক জি আর মানিক , প্রচার সম্পাদক সাইদুর রহমান.
উপ- দপ্তর সম্পাদক রাজিব রহমান, উপ-প্রচার সম্পাদক তারেক হাসান, মহিলা সম্পাদিকা রিনা কবির, ইমিগ্রেশন বিষয়ক সম্পাদক সোহেল রানা ,শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক ইলিয়াস মাদবার, ত্রান ও সমাজ কল্যান সম্পাদক সৈয়দ ইব্রাহীম হোসেন, শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক বিক্রম পাল প্রমুখ।

সম্মানিত সদস্যের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন – হাজী সুইট, রুহুল আমিন, অনিক হাওলাদার, রাসেল রানা, সুলতানা নিগার মিতা, ফয়সাল আহমেদ জনি সহ অনেকে।

পরিশেষে রাতের খাবার এর মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

দেশের প্রতিটি নাগরিকই কমিউনিটি পুলিশের সদস্য। তাই থানা পুলিশকে তথ্য দিয়ে মাদক, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধ নিয়ন্ত্রনে কমিউনিটি পুলিশের সহযোগিতা কামনা করেন খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা সার্কেলের সিনিয়র সার্কেল মো: খোরশেদুল আলম। শনিবার সকালে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ ও মাটিরাঙ্গা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম কর্তৃক আয়োজিত র‌্যালি উত্তর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

এ সসময় তিনি আরও বলেন, আপনার এলাকার অভ্যন্তরে যে সকল অপরাধ প্রতিনিয়ত হচ্ছে তা নিয়ন্ত্রনে কমিউনিটি পুলিশের ভুমিকা অপরিসীম।
মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শামছুদ্দিন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এবং মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক এম হুমায়ন মোর্শেদ খান, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সুবাস চাকমা, মাটিরাঙ্গা পৌর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এম জাহাঙ্গীর আলম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: মনসুর আলী, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো: আলাউদ্দিন লিটন প্রমুখ অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মাটিরাঙ্গা থানা কমপাউন্ড থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে গিয়ে শেষ হয়।

আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ির নবাগত জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস কর্তৃক সাম্প্রতিক সময়ে বাঙ্গালীদের স্থায়ী বাসিন্দা সনদ না দেওয়া ও ভূমি রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় জটিলতা সৃষ্টির মাধ্যমে বাঙ্গালী ভূমি ক্রেতাদের হয়রানি করা এবং বৈষম্যমূলক আচরনের মাধ্যমে পার্বত্য অঞ্চলে অস্থির পরিবেশ সৃষ্টি করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে তীব্র নিন্দা ও জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাষ দ্রুত সময়ের মধ্যে খাগড়াছড়ি থেকে প্রত্যাহার করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

সংগঠনটির জেলা কমিটির সভাপতি মোঃ আসাদুল্লাহ আসাদের সভাপতিত্বে সকালে খাগড়াছড়ি পৌর শাপলা চত্বরে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অন্যান্যের মধ্যে কেন্দ্রীয় আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ইঞ্জি. আব্দুল মজিদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সভাপতি মোঃ সুমন আহমেদ, মোঃ জালাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহাদাৎ হোসেন কায়েশ, সহ-সম্পাদক শামীম হোসেন, মোঃ ওমর ফারুক, মোঃ সোহেল রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশ্রাফুল আলম রনি, দীঘিনালা আহবায়ক মোঃ আলামিন হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, খাগড়াছড়ির নবাগত জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস খাগড়াছড়িতে দায়িত্ব নেবার পর থেকেই বিভিন্ন ভাবে নানা রকম জটিলতার কথা বলে বাঙ্গালীদের স্থায়ী বাসিন্দা সনদ দিচ্ছেন না। এমনকি ভূমি রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় জটিলতা সৃষ্টির মাধ্যমে বাঙ্গালী ভূমি ক্রেতাদের পাহাড়ে ভূমি ক্রয়ের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন। বক্তারা অবিলম্বে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসকে এই বৈষম্য ও হয়রানীমূলক কার্যক্রম থেকে সরে আসার আহবান জানান।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক পাহাড়ে সন্তু লারমা ও প্রসীত বিকাশ খীসার ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতেই বাঙ্গালীদের সাথে এমন আচরণ করছেন উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, আগামী বুধবারের মধ্যে অনতিবিলম্বে স্থায়ী বাসিন্দা সনদ প্রদানের আবেদনের সময়সীমা বাড়ানোসহ হেডম্যান সনদের নামে হয়রানী করা বন্ধ না হলে আগামী বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসক কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচীর ঘোষনা দেন।

এর আগে সকালে চেঙ্গী স্কয়ার হতে একই দাবিতে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে শাপলা চত্বরে এসে মানববন্ধনে মিলিত হয়।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি॥

খাগড়াছড়ির লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক নেতা-কর্মীরা। রবিবার সকালে ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপকে নিষিদ্ধসহ রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে এ বিক্ষোভ মিছিল ও সামবেশে করে তারা। বিক্ষোভ মিছিলটি লক্ষ্মীছড়ি বাজার থেকে বের হয়ে উপজেলা বিভিন্ন সড়ক ঘুরে থানা সংলগ্ন এলাকায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গতি চাকমা। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রাজু চাকমা দিপান্তর ও দেপাত্তন চাকমা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রসিত গ্রুপের ইউপিডিএফ পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিরোধীতা করে পাহাড়কে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করে রেখেছে। কিছু সংখ্যক সাধারণ মানুষকে মিথ্যা আশাবান দিয়ে ভুল বিুঝিয়ে বিভ্রান্ত করছে। নানাভাবে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করাসহ ভয়-ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এসকল হয়রানী ও রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রম বন্ধ’সহ ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপকে নিষিদ্ধের দাবি জানান বক্তারা।


আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি//

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেছেন, সারাদেশে দুর্নীতি, টেন্ডারবাজি ও সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এ অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দেশের আইন শৃংখলা রক্ষায় ও শান্তি বজায় রাখতে পুরো দেশকেই একই জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রামও এর বাইরে নয়। দেশে স্থিতিশীলতা বজায় ও শান্তি শৃঙ্খলার স্বার্থে যখন যে ধরনের পদক্ষেপ প্রয়োজন সে ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হবে। তিনি আজ দুপুরে খাগড়াছড়ির সীমান্তবর্তী উপজেলা রামগড়ে নবনির্মিত মডেল থানা ভবন উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

এ সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী পার্বত্য এলাকায় স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, এখানকার লোকজন যাতে শান্তিতে বসবাস, ব্যবসা বাণিজ্য ও যাতায়াত স্বাচ্ছন্দ্যে করতে পারে সেজন্যই শান্তি-শৃংখলা বাহিনী অত্র এলাকায় কাজ করছে। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে এলাকার জন প্রতিনিধি, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে গ্রহনযোগ্য সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এর আগে মন্ত্রী রামগড় থানায় পৌঁছে সালাম গ্রহণ শেষে ৭কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪ তলা বিশিষ্ট নবনির্মিত রামগড় মডেল থানা ভবনের ফলক উম্মোচন করে উদ্বোধন করেন। পরে ফিতা কেটে ভবনের বিভিন্ন কক্ষ পরিদর্শন করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী।
এসময় খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, সংরক্ষিত আসনের সাংসদ বাসন্তি চাকমা, বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড এর মহা পরিচালক মেজর জেনারেল মো: সাফিনুল ইসলাম, পুলিশের চট্টগ্রাম অঞ্চলের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুকসহ সরকারি- বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে রামগড় সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী সূধী সমাবেশে যোগদেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। সমাবেশে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শরণার্থী বিষয়ক টাক্সফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি’সহ জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

মেহেনাস তাব্বাসুম শেলি রোম প্রতিনিধিঃ
ইতালীর বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এন আর বি ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ইতালী আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী ইদ্রিস ফরাজী বাংলাদেশ সফর শেষে গতকাল ১৪অক্টোবর সোমবার রাত ৮ঘটিকায় ইতালী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে এসে পৌছালে তাকে ফুলেল উষ্ণ অভ্যর্থনা জানিয়েছে ইতালী আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা।

এসময় ইতালী আওয়ামী লীগের সংগ্রামী বিপ্লবী সাধারন সম্পাদক হাসান ইকবালের নেতৃত্বে ইতালী আওয়ামী লীগ, ইতালী মহিলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ইতালী শাখা, আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ ইতালী, রোম মহানগর আওয়ামী লীগ, তুসকোলানা আওয়ামী লীগ, রোমা নর্দ আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ইতালী, আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ইতালী, বঙ্গবন্ধু পরিষদ সহ ইতালীস্হ সকল মুজিব আদর্শের সৈনিক ও রোমের সামাজিক, আঞ্চলিক বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতি ইদ্রিস ফরাজীর ইতালী আগমনে নেতৃবৃন্দরা তাকে স্বাগতম জানিয়ে বলেন “আমাদের প্রাণপ্রিয় নেতা হাজী ইদ্রিস ফরাজী বাংলাদেশ সফর শেষে আমাদের মাঝে সুস্থ ভাবে ফিরে আসায় সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দদের মধ্যে একটি আনন্দঘন মুহূর্ত তৈরি হয়েছে, এবং তারা উনার সু-স্বাস্থ্য কামনা করেন এবং ইতালী আওয়ামী লীগের সকল কর্মকান্ডে এগিয়ে এসে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। হাজী ইদ্রিস ফরাজী সংক্ষিপ্ত বক্তব্যেতে বলেন ইতালীতে অবস্থানরত সকল বাংলাদেশী প্রবাসীদের সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করছি, পাশাপাশি তিনি সকল ভেদাভেদ ভুলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে দেশ ও সমাজের জন্য কাজ করার জন্য আহ্বান জানান এবং ইতালী আওয়ামী লীগের সকল নেতৃবৃন্দদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে ইতালী আওয়ামী লীগকে একটি প্লাটফর্মে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেন।

পরিশেষে হাজী ইদ্রিস ফরাজীকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানোর জন্য উপস্থিত সকলকে তিনি বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসা মিষ্টি সকলকে আপ্যায়ন করান এবং ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

কামরুল,মীরসরাইঃ মীরসরাইয়ে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে  দুর্বৃত্তের  হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দূর্বৃত্তের হামলায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান পন্ড হয়ে যায়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। রবিবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যার ৬টায় উপজেলা হিঙ্গুলী ইউনিয়নের হিঙ্গুলী বাজারে এই ঘটনা ঘটে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আহবায়ক শাহরিয়া চৌধুরী সোহেল জানান, হিঙ্গুলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৯টি ওয়ার্ডে নব-নির্বাচিত সভাপতি-সম্পাদকদের সংবর্ধনার আয়োজন করে হিঙ্গুলী বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ। উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান ইফতেখার উদ্দিন ভূইয়া পিন্টুর সভাপতিত্ব ও বারইয়ারহাট পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম খোকন অনুষ্ঠান উদ্বোধন করার কথা ছিল। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। প্রথম পর্যায়ে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের বক্তব্য শেষে নামাজের বিরতী দেয়া হয়। এসময় হঠাৎ অটো রিক্সা যোগে মুখোশ পড়া কয়েকজন দুর্বৃত্ত দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অতিথিদের জন্য মঞ্চে রাখা ক্রেস্ট ভেঙ্গে ফেলে। মঞ্চের সামনে থাকা চেয়ারগুলো তছনছ করে ফেলে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। ঘটনার সময় কোন অতিথি অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত ছিলেন না  । বিষয়টি মৌখিক ভাবে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ, স্থানীয় চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দকে জানানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী মো. দিদার জানান, দূর্বৃত্তদের মুখে লাল কাপড় বাধা ছিল। ৩ মিনিট হামলা চালিয়ে চোখের পলকে সিএনজি অটো রিক্সা যোগে পালিয়ে যায়।

এবিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার সিরাজুল ইসলাম জানান, তিনি নির্বাচনী দায়িত্বে সাতকানিয়া রয়েছেন। তবে বিষয়টি মৌখিকভাবে তাকে জানালে তিনি থানায় দায়িত্বরত কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

গুইমারা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার প্রাক্তন ছাত্রী রেবেকা সুলতানা পলি’ র নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ ১০ অক্টোবর, সকাল সাড়ে দশটায় মাদরাসা সংলগ্ন মসজিদে এক শোক সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। উক্ত সভায় সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ নুরুননবী’ র সভাপতিত্বে ও সহসভাপতি আবদুল জলিলের সঞ্চালনায় সভায় মরহুমা রেবেকার শ্রেণী শিক্ষক মোঃ ইউচুফ তার স্মৃতিচারণ বক্তব্য রাখেন।

সভায় মরহুমার মামা মোঃ আবদুল মুনাফ পলির নৃশংস খুনের বর্ণনা দেন। এ সময় সভাজুড়ে উপস্থিত শিক্ষকমণ্ডলী, প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মাঝে নেমে আসে শোকের ছায়া। শোকাহত চোখ যেন নির্বাকচিত্তে শুধু বলছিলো, রেবেকা শুধু রাসেল রানা র বোন নয়, সে আমাদেরও বোন। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার সুপার মাওলানা জায়নুল আবদিন। বক্তারা তাদের বক্তব্যে রেবেকার গুইমারা মাদরাসায় অধ্যয়নকালীন মধুর স্মৃতি তুলে ধরেন।

উল্লেখ্য যে, ২০১৬ সালে রেবেকা পারিবারিক কারনে গুইমারাস্থ ডাক্তারটিলার বসতভিটা ছেড়ে চট্টগ্রামে তার মা ছখিনা খাতুন ও একমাত্র ভাই চট্টগ্রাম মহসিন কলেজে অধ্যয়নরত এবং উক্ত সংগঠনের ক্রীড়া সম্পাদক রাসেল রানা- দাখিল ২০১১ ব্যাচ এর সাথে বসবাস শুরু করে। নগরীর বন্দর থানাধীন হালিশহর আহমদ মিয়া সিটি করপোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে সে অধ্যয়নরত ছিলো। তার পিতা ফিরোজ খান একজন প্রবাসী এবং মা চাকুরিজীবী ও বড় ভাই বেশিরভাগ সময় পড়ালেখার কারনে বাসার বাইরে থাকার সুযোগে বাড়ির মালিক লম্পট এ.কে খানের কুনজরে পড়ে। গত ০২ অক্টোবর রেবেকা বাসায় অবস্থানকালীন সময়ে আসামী তাকে ধর্ষণ পূর্বক পরবর্তীতে নৃশংসভাবে খুন করে পালিয়ে যায়। আসামী ধরা পড়লেও বিত্তবান ও প্রভাবশালী হওয়ায় রেবেকার পরিবারসহ সকলেই ন্যায় বিচার নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন।

বক্তারা আরো বলেন, খুনি এ.কে খানের মতো এ সমাজে আরো অনেক লম্পট ভালো মানুষের মুখোশ পরিধানকারীর হাতে আমাদের বোন রেবেকার মতো পরবর্তী শিকার হতে পারে। তাই, আমাদের উচিৎ সচেতন হওয়া এবং রেবেকার খুনির সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে সোচ্চার হওয়া। নচেৎ রেবেকার মতো অনেক শিক্ষার্থী বোন লালসার শিকার হয়ে একে একে আমাদের ছেড়ে চলে যাবে।

সভায় দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন, মাদরাসার সহঃ সুপার মাওলানা আ.ন.ম রফিকুল ইসলাম। শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা খোরশেদুল আলম, জসিম উদ্দিন, শামসুল আলম, মোহাম্মদ উল্লাহ,জামাল উদ্দিন ও মাস্টার বাবুল হোসেন সহ প্রমূখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ ইউসুফ, সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক, সম্পাদক নুরুননবী, আরিফুল হক, আনিসুর রহমান (ঢা.বি), আমির হামজা (চ.বি),সদস্য সাইফুল ইসলাম, পারভেজ হোসেন,ওমর ফারুকসহ সদস্যবৃন্দ।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুব রেড ক্রিসেন্টের গুইমারা ইউনিটের যুবপ্রধান মীর বাবলুসহ সাংবাদিক বন্ধুগন। সভাশেষে মরহুমার কবর জিয়ারত পরিচালনা করেন মাওলানা খোরশেদ আলম। সভায় রেবেকার প্রাক্তন সহপাঠীরাসহ মাদরাসার দুই শতাধিক ছাত্র/ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।


আবুল হোসেন রিপন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

রেবেকা সুলতানা পলি হত্যার বিচার ও হত্যাকারী লম্পট বাড়িওয়ালা এ.কে খানের ফাঁসির দাবিতে গুইমারায় বিক্ষোভ, ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার(৭অক্টোবর)সকাল ১০টায় গুইমারা উপজেলা সদরে গুইমারা উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের আয়োজনে বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার হাজারো মানুষ অংশগ্রহন করেন।

যুব রেড ক্রিসেন্ট গুইমারা ইউনিটের যুব প্রধান মীর বাবলুর সঞ্চালনায় মানববন্ধনের বক্তব্য রাখেন, গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান মেমং মারমা, গুইমারা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো:ইউচুফ, হাফছড়ি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার সুইমং মারমা,হাফছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো: সাগর।

বক্তারা বলেন,রেবেকা সুলতানা পলিকে পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে। যা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। চার দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে,তদন্ত সাপেক্ষে পলি হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সবাইকে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন,সুষ্ঠু বিচার নিয়ে কোনো কারসাজি হলে সর্বস্তরের জনতা রাজপথে নেমে কঠোর কর্মসূচী গ্রহন করবে।

উল্লেখ্য, নিহত স্কুল ছাত্রী রেবেকা সুলতানা পলি(১৩),গুইমারা উপজেলার ডাক্তার টিলার মালয়েশীয়া প্রবাসী ফিরোজ খান ও সকিনা খাতুন দম্পতির সন্তান। চট্টগ্রামের হালিশহর আহম্মদ মিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী।চট্টগ্রামের ইয়াংওয়ানে চাকুরীর সুবাদে নিহত পলির মা সকিনা খাতুন এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে ৩৮ নং ওয়ার্ডের কুড়ির পাড়ের একেখানের ৫তলা ভবনের নীচতলায় ভাড়া থাকতেন। মায়ের চাকুরীর কারণে মেয়েকে একায থাকতে হতো বাড়িতে। এ সুযোগে লম্পট বাড়িওয়ালা একেখান(৪০)প্রায় পলিকে কুপ্রস্তাব দিয়ে বিভিন্ন উছিলায় ডিসটার্ব করতো। বিষয়টি মেয়ে তাকে জানালেও তিনি ততটা গুরুত্ব দেননি। ২অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভাড়া বাসা থেকে রহস্যজনক পলির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে বন্দর থানা পুলিশ। পলির মায়ের দাবী পলিকে হত্যা করা হয়েছে। পলির পিঠে আঘাতের চিহ্ন, ঠোঁটে কামড়ের দাগ, গলার নখের দাগ, মুখে হাতের ছাপ, হাতের কব্জি ভাঙ্গা এবং তালুতে আঘাতের চিহ্ন ছিলো। যা বন্দর থানা পুলিশ সুরতহালে রহস্যজনকভাবে উল্লেখ করেনি বলে অভিযোগ করেছে পলির পরিবার।

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইতালী বিএনপির সাবেক তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক সাংবাদিক নামধারী হাসান মাহামুদের কর্মকান্ডে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে ইতালী আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাকর্মীরা, এই হাসান মাহামুদ ইতিমধ্যে ইতালী আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক হাসান ইকবালের প্রধান পরামর্শদাতা হিসেবে ইতালী আওয়ামী লীগের তার মিশন বাস্তবায়ন করছে। তার পরামর্শে ইতালী আওয়ামী লীগে বিএনপি জামাত পন্থী অনুপ্রবেশকারী ঢুকে পড়েছে। কোনঠাসা হয়ে পড়েছিল ত্যাগী নেতাকর্মীরা। গত ১৫ই আগষ্ট ত্যাগী নেতাকর্মীদের দাবীর মুখে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সভাপতি ইদ্রিস ফরাজী কথিত সাংবাদিক হাসান মাহামুদ ও বিএনপি কট্টর সমর্থক মনিরুজ্জামানকে অনুষ্ঠান স্থল থেকে বের করে দেন। এবং তাদের আওয়ামী লীগের কোন অনুষ্ঠানে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। এর আগে ইতালী আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী সাংগঠনিক সম্পাদক তাকে লাঞ্ছিত করেন। সেই অপমানের শোধ নেওয়ার জন্য হাসান মাহামুদ সুকৌশলে ইউরোপ আওয়ামী লীগকে ব্যবহার করে। তিনি গভীর সম্পর্ক গড়ে তোলেন ইউরোপ আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলামের সাথে। যার প্রমান স্বরুপ জনাব নজরুল ইসলামের সাথে তোলা একাধিক ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্ট করেন। এবং সবাইকে এম নজরুল ইসলামের দোহাই দিয়ে সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করেন। এবং বলে বেড়ায় যে ইউরোপ আ লীগ তার পর্রামশে চলে।ইতালী আ লীগ তার নির্েশ মতই হবে।এর ফলে মেয়াদোত্তীর্ণ ইতালী আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক হাসান ইকবাল হাসান মাহামুদকে আবার কাছে টেনে নেয়। শুরু হয় দলের মধ্যে কোন্দল। যার চুড়ান্ত বহিঃপ্রকাশ ঘটে গত ২৯ সেপ্টেম্বর, ইতালী আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলী আহাম্মদ ঢালীর সভাপতিত্বে সাধারন সভায়। এই সাধারন সভায় ইতালী আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারন সম্পাদক অবস্থা বেগতিক বুঝে অংশ নেননি। সভায় ইতালী আওয়ামী লীগের কমিটির সবাই বিক্ষুব্ধ হয় বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত হাসান ইকবালের প্রতি। উপস্থিত বক্তারা সবাই যার যার বক্তৃতায় হাসান ইকবালের সকল অপকর্মের অভিযোগ তুলে কমিটি ভেঙ্গে দেওয়ার শ্লোগান দেয়। বাধ্য হয়ে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কমিটি ভেঙ্গে দেন। এবং সকলের সম্মতিক্রমে ইতালী আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর ফরাজীকে সভাপতি এবং যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এ এ রব মিন্টুকে সাধারন সম্পাদক মনোনিত করেন। উল্লেখ্য হাজি ইদ্রিস ফরাজী বিগত ছয় বছর যাবত স্থায়ীভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। তিনি সহ সভাপতি আলী আহাম্মদ ঢালীকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দিয়ে যান। এবং তিনি তার দায়িত্ব নিস্ঠার সাথে পালন করে যান।জনাব ইদ্রিস ফরাজী কোন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী যদি ইতালীতে আসে বা তার ব্যক্তিগত কাজে ২/৩দিনের জন্য অতিথি পাখির মত ইতালীতে আসেন। তিনি ইতালী আ লীগের সভাতিকে গুরুত্বহীন মনে করে শরিয়তপুর জেলা আ লীগের সহ সভাপতিকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে সেখানে মনোনিবেশ করেন। এদিকে সদ্য সাবেক জনাব হাসান ইকবাল হারানো পদ হারিয়ে দিশেহারা। তিনি বিএনপি নেতা কথিত সাংবাদিক হাসান মাহমুদ ও কট্টর বিএনপি মনিরুজ্জামানকে দিয়ে ইউরোপ আওয়ামী লীগকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করছেন।